1. admin@dwiptv.com : dwiptv.com :
  2. dwiptvnews2121@gmail.com : sub editor : sub editor
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:০৪ পূর্বাহ্ন

যশোর জেলায় সংক্রমণ কমছে না : বৃদ্ধি পাচ্ছে মৃত্যুর মিছিল; মৃত্যু আরও ১৩, শনাক্ত ৩৭১

 উৎপল ঘোষ (ক্রাইম রিপোর্টার) যশোর
  • আপডেট: রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১
যশোর জেলায় সংক্রমণ কমছে না : বৃদ্ধি পাচ্ছে মৃত্যুর মিছিল; মৃত্যু আরও ১৩, শনাক্ত ৩৭১
যশোর জেলায় সংক্রমণ কমছে না : বৃদ্ধি পাচ্ছে মৃত্যুর মিছিল; মৃত্যু আরও ১৩, শনাক্ত ৩৭১

যশোর জেলায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমছেনা। প্রতিদিনি মৃত্যুর মিছিলে লাশ বাড়ছেই। সেই সাথে শনাক্ত হচ্ছেন শ’শ’ মানুষ। গত ২৪ ঘন্টায়ও জেলায় করোনা ও উপসর্গে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৩৭১ জন। এদিকে, কঠোর লকডাউনে যশোর শহর ফাঁকা থাকলেও গ্রামগঞ্জে মানুষের ভীড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তাদের চলাচল দেখে যে  কেউ মনে করবেন করোনা বলে কোনো রোগ নেই। জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মানুষের অবহেলা উদাসীনতার কারণে সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। কষ্ট হলেও সকলকে লকডাউন মেনে চলার আহবান তাদের। এদিকে, সংক্রমণ প্রতিরোধে সকলকে নিয়ে মহল্লায় মহল্লায় কমিটি গঠনের  পরামর্শ সচেতন মহলের।

 

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আরিফ আহমেদ জানান, গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালের করোনা রেডজোন ও ইয়োলোজোনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে করোনায় আক্রান্ত ছিলেন ৭ জন । তারা হলেন যশোর ডি আই জি রোডের বাসিন্দা কেরামত আলীর ছেলে বাবু (৪৫), উপশহর ই ব্লকের রুহুল আমিনের স্ত্রী লাইলী বেগম (৭১), সদর উপজেলার রুপদিয়া গ্রামের সন্তোষ দাসের মদন মোহন দাস (৭০), ঝিকরগাছা উপজেলা এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ মোড়লের ছেলে আলাউদ্দিন (৬৫), পুরন্দপুর গ্রামের বদর উদ্দিনের ছেলে সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক (৮০), কেশবপুর উপজেলার বাঁশ বাড়িয়া গ্রামের নিতাই চন্দ্র রায়ের স্ত্রী স্বরসতীর রায় (৭১) ও বেনাপোল পোর্ট থানা এলাকার জাকির হোসেনের ছেলে ওলিয়ার রহমান (৬৫)। এছাড়া ইয়োলোজোনে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ৬ জন হলেন যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া গ্রামের নান্নু গাজীর স্ত্রী ফিরোজা বেগম (৪০), ঘুনি গ্রামের ওলিয়ার রহমানের স্ত্রী তহমিনা বেগম (৬০), ডুমুরখালি গ্রামের লিয়াকত আলীর স্ত্রী কহিনুর বেগম (৫০),বাঘারপাড়া উপজেলার বাসুযাড়ী গ্রামের ওয়াজেদ আলীর স্ত্রী মনিরা বেগম (৬০),  ঝিকরগাছা উপজেলার আবু তাহেরের স্ত্রী আমেনা বেগম (৫৫) ও চৌগাছা উপজেলার ইসহাক আলীর স্ত্রী সুপ্রিয়া বেগম (৪৫)।

 

সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ জানান, গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে ৩৬৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শুক্রবার রাতে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারে ৭১৬ টি নমুনায় পরীক্ষায় তাদের  করোনা শনাক্ত হয়। যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩২৩ জনের র‌্যাপিড এন্টিজেন পরীক্ষায় ১১৯ জনের ফলাফল করোনা পজেটিভ আসে। এছাড়া জিন এক্সপার্ট মেশিনে ৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের জীবাণু মেলে। সবমিলিয়ে ১ হাজার ৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩৭১ জন করোনা পজেটিভ ও ৬৭৫ জনের নেগেটিভ শনাক্ত হয়।  শনাক্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ২৮৪ জন, কেশবপুর উপজেলায় ৬ জন, ঝিকরগাছা উপজেলায় ১১ জন, অভয়নগর উপজেলায় ২২ জন, মণিরামপুর উপজেলায় ১২ জন, বাঘারপাড়া উপজেলায় ২ জন, শার্শা উপজেলায় ১৮ জন ও চৌগাছা উপজেলায় ১৬ জন রয়েছে।

 

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, কঠোর লকডাউনে প্রশাসনিক কড়াকড়ি কারণে যশোরের শহরগুলো ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে। প্রয়োজন ছাড়া তেমন কারো দেখা মিলছে না। কিন্তু গ্রাম গঞ্জে মানুষের ভীড় রয়েছে। কোনো প্রকার স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না তারা। যে কারণে গ্রামে গ্রামেও যৌথ বাহিনীর অভিযান পরিচালনার প্রয়োজন। গ্রামের মানুষ সচেতন না হলে করোনার সংক্রমণ কোনভাবেই কমবেনা বলে অনেকের অভিমত। সিভিল সার্জন আরও জানান, ৩ জুলাই পর্যন্ত যশোর জেলায় ১৩ হাজার ৩৯ জন কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। যশোরের বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাড়িতে মৃত্যু হয়েছে ১৬২ জনের। এছাড়া ঢাকায় ৬ জন খুলনায় ৭ জন ও সাতক্ষীরার হাসপাতালে মারা গেছেন ১জন। এক প্রশ্নে তিনি জানান, গ্রামের মানুষকে সচেতন করতে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা নিয়মিত কাজ করছেন। যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্টেট সায়েমুজ্জামান জানান,  করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে কঠোর লকডাউন সফলে যৌথ বাহিনীর অভিযান চলছে। শহরের পাশাপাশি গ্রামেও অভিযান চালানো হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আমাদের এন্ড্রয়েড এপস আপনার মোবাইলে ইন্সটল করুন।

Developer By Zorex Zira