1. admin@dwiptv.com : dwiptv.com :
  2. dwiptvnews2121@gmail.com : sub editor : sub editor
বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৭:২৪ পূর্বাহ্ন

মুন্সীগঞ্জ‌ে টঙ্গীবাড়ী‌তে ‌বিদ‌্যায়ল আ‌ছে বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই  শহীদ মিনার

মোঃ লিটন মাহমুদ, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি :
  • আপডেট: সোমবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
মুন্সীগঞ্জ‌ে টঙ্গীবাড়ী‌তে ‌বিদ‌্যায়ল আ‌ছে বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই  শহীদ মিনার
মুন্সীগঞ্জ‌ে টঙ্গীবাড়ী‌তে ‌বিদ‌্যায়ল আ‌ছে বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই  শহীদ মিনার

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই কোন  শহীদ মিনার। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কোনোটিতে অস্থায়ীভাবে শহীদ মিনার বানিয়ে দিবসটি পালন করা হয়। আবার কোনো প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার না থাকায় দিবসটি পালনই করা হয় না।

“এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলো যারা, আমরা তোমাদের ভুলবো না”। ফেব্রুয়ারী মাস এলেই ভাষার জন্য জীবন উৎসর্গকারী শহীদদের কথা মনে পড়ে আমাদের। অথচ সেই ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীতে অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নির্মাণ করা হয়নি শহীদ মিনার। বাঙালি চেতনা ও আমাদের জাতিসত্তার প্রথম উন্বেষ ঘটে ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে। ভাষা শহীদদের প্রতি যথার্থ মর্যাদা দিতে হলে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রয়োজন শহীদ মিনার।
১৯৫২ সালে মায়ের ভাষায় কথা বলার জন্য জীবন বিলিয়ে দেওয়ার ৭০ বছর পরও শহীদ মিনার নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি এ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। সরকারী ভাবে শহীদ মিনার নির্মাণের জন্য কোন অনুদান না থাকায় শহীদ মিনার নির্মান করতে পারেনি বলে জানায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো।
মুন্সীগঞ্জ‌ে টঙ্গীবাড়ী‌তে ‌বিদ‌্যায়ল আ‌ছে বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই  শহীদ মিনা

মুন্সীগঞ্জ‌ে টঙ্গীবাড়ী‌তে ‌বিদ‌্যায়ল আ‌ছে বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই  শহীদ মিনা

তবে ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। উপজেলা শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এ উপজেলায় ১৮ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ১৬ টি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মান করা হয়েছে।
৩ টি কলেজ রয়েছে। তারমধ্যে বিক্রমপুর টঙ্গীবাড়ী কলেজ ও বালিগাঁও আমজাদ আলী কলেজে তাদের ব্যক্তিগত অর্থায়নে শহীদ মিনার নির্মাণ করেছে। কিন্তু সেরাজাবাদ রানা শফিউল্লাহ কলেজে এখনো স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। তবে ৬ টি দাখিল মাদ্রাসা থাকলেও তার কোনটিতেই নেই শহীদ মিনার। তাছাড়া ৯২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে মাত্র ৩১ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার রয়েছে।
এছাড়া উপজেলায় প্রায় ৬৩টি কিন্ডারগার্টেন রয়েছে কিন্তু তাদের মধ্যে স্থায়ী কোনো শহীদ মিনার পাওয়া যায় নি।
টঙ্গীবাড়ী কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের সভাপতি আওলাদ হোসেন বলেন, আমাদের এসোসিয়েশন বহির্ভুত কিছু কিন্ডারগার্টেন রয়েছে। সবমিলে উপজেলায় প্রায় ৬৩টি কিন্ডারগার্টেন রয়েছে। আমরা অস্থায়ী ভাবে শহীদ মিনার বানিয়ে সেখানে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।
উপজেলার সেরাজাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রুহুল আমিন বলেন, আমাদের স্কুলে শহীদ মিনার না থাকায় অস্থায়ী শহীদ মিনার বানিয়ে সেখানে শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আঞ্জুমান আরা বেগম জানান- সরকারী ভাবে কোন বরাদ্দ না থাকায় বিদ্যালয় গুলোতে শহীদ মিনার নির্মান করা সম্ভব হয় নাই। তবে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি তাদের নিজ উদ্যোগে শহীদ মিনার নির্মান করেছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা খালেদা পারভীন জানান- সরকারী ভাবে শহীদ মিনার নির্মাণের কথা বললেও কোন বরাদ্দ না থাকায় অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি।
তবে বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহিদ মিনার নির্মান করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

আমাদের এন্ড্রয়েড এপস আপনার মোবাইলে ইন্সটল করুন।

Developer By Zorex Zira